1. mostafapress2015@gmail.com : Md. Mostofa : Md. Mostofa
  2. msalamc@gmail.com : first1 :
  3. rubelmadbor786@gmail.com : Editor2 : Rubel Madbor
  4. munshiganjcrimetv@gmail.com : Abdus Salam : Abdus Salam
February 27, 2020, 1:46 am

শরীয়তপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ কাজ ১৯ বছরে ও শেষ হয়নি

প্রতিবেদকের নামঃ
  • প্রতিবেদনের সময়ঃ Wednesday, December 11, 2019
  • 58 Time View

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ॥ ময়লা আর্বজনা ভিতর অসমাপ্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে শরীয়তপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক সম্বলিত স্মৃতি স্তস্তটি। অর্থ বরাদ্ধের অভাবে শরীয়তপুর জেলার শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক সম্বলিত স্মৃতি স্তম্ভ দীর্ঘ ১৯ বছরে নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি। বর্তমানে স্মৃতিস্তম্ভের অসমাপ্ত কাজের উপর শেওলা পড়ে জরাজীর্ন হয়ে পড়েছে। এতে করে শরীয়তপুরের মুক্তিযোদ্ধারা মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন শরীয়তপুর সদর উপজেলার সাবেক সহকারী কমান্ডর আলহাজ¦ আবদুর রহমান খান। তাদের দাবী সরকার অর্থ বরাদ্ধের মাধ্যমে অনতি বিলম্বে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ফলক সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভ নির্মান কাজ শেষ করা হোক। গনপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বলছেন, ঐ প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে যাওয়ায় বাকি কাজ শেষ করা সম্ভব হয়নি।

সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডর বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ আজিজ সিকদার বলেন ও গনপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের বাউন্ডারির ভিতরে শরীয়তপুর গনপূর্ত প্রকৌশল অধিদপ্তর ২০০২ সালে প্রধামন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি প্রকল্পের আওতায় ১১ লাখ ৩৯ হাজার টাকা ব্যয় সাপেক্ষে শরীয়তপুর জেলার শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নামফলক সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভ নির্মান কাজের দরপত্র আহবান করে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মাহবুবুর রহমান ভ’ইয়া সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে এ কাজ শুরু করে। ৮ লাখ ৩৯ হাজার টাকা ব্যয়ে পুরো কাজের প্রায় ৫৫ ভাগ কাজ শেষ হতে না হতেই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপর সরকার পরিবর্তন হওয়ায় নুতন করে এ প্রকল্পের জন্য কোন অর্থ বরাদ্ধ না দেয়াতে দীর্ঘ ১৯ বছরে ও এ কাজটি শেষ করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নাম ফলক সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভ জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। অসমাপ্ত কাজে সামনের অংশে স্থানীয় শ্রমিকরা টিনের চালা দিয়ে ঘর নির্মান করে বসবাস করে আসছে। পিছনের অংশে স্থানীয় লোজন মলমুত্র ত্যাগ কনে। চতুরদিকে ময়লা পানি ও শেওলা পড়ে জরাজীর্ন অবস্থায় রয়েছে। একটি অংশে প্রতিবেশী লোকেরা লাউ গাছ রোপন করা করে আসছে। এতে এক দিকে পরিবেশ দূষন হচ্ছে। অপর দিকে মুক্তিযোযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ ফলক অবমূল্যায়ন করা হচ্ছে। এতে করে শরীয়তপুরের মুক্তিযোদ্ধারা মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অথচ বাংলাদেশের অনেক জেলাতেই মুক্তিযোদ্ধাদের নাম সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভ নির্মান করা হয়েছে। শরীয়তপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের দাবী অনতিবিলম্বে অর্থ বরাদ্ধ দিয়ে শরীয়তপুর জেলার শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নাম ফলক সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভ নির্মান কাজ দ্রুত সম্পন্ন করা হোক।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা সাবেক ডেপুটি সহকারী মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডর বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রহমান খান (দুলু)বলেন, আমরা শরীয়তপুরের মুক্তিযোদ্ধারা অবহেলিত। ৬৩ জেলায় স্মৃতি স্তম্ভ থাকলে ও আমাদের জেলায় কিছু কাজ করার পর জরাজীর্ন অবস্থায় পড়ে আছে। সরকারের কাছে আমাদের আবেদন অর্থ বরাদ্ধ দিয়ে এ কাজটি অনতি বিলম্বে শেষ করা হোক।
এ ব্যাপারে শরীয়তপুর সদর উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডর বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ আজিজ সিকদার বলেন, সারা বাংলাদেশের সব জেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভ আছে। আমাদের জেলার কাজটি শুরু করে মাঝ পথে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ঐ স্থানে মলমুত্র ত্যাগসহ জর্রাজিন্ন অবস্থায় রয়েছে।

গনপূর্ত অধিদপ্তর শরীয়তপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহজাহান মিয়া বলেন, এ প্রকল্পের মেয়াদ শেস হয়ে যাওয়ার পর আর নবায়ন করেনি। তাই অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক বিস্তারিত বলতে পাবো। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি হয়ে যাবে।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, এ ব্যাপারে মুক্তিযুদ্ধা মন্ত্রনালয়ে ও এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীর সাথে কথা বলেছি। তারা বলেছেন মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ফলক নির্মানের জন্য বরাদ্ধ রেখেছেন। বরাদ্ধ হাতে পাওয়ার সাথে সাথে কাজ শুরু করবো।

আপনি এই খবরটি নিচের কোন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার জন্য এ ধরনের আরও সংবাদঃ
© All rights reserved © 2020 TV Site by  Munshiganj Crime TV
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
>